ফল ও সবজি কেমিক্যাল মুক্ত করবেন যে ভাবে

Jul 16, 2017 11:13 am
ফর ও সবজিতে কেমিক্যাল বা ক্ষতিকর রাসায়নিক নিয়ে এখন আতঙ্ক


আদিবা শাইয়ারা


সব ধরনের ফর ও সবজিতে কেমিক্যাল বা ক্ষতিকর রাসায়নিক নিয়ে এখন আতঙ্ক বিরাজ করছে। অনেকে ফল কেনা ছেড়েই দিয়েছেন। বাজার থেকে কেনা ফল-সব্জি খাওয়ার আগে বা রান্না করার আগে ভাল করে ধুয়ে খাওয়া উচিত। চিকিত্সকেরা এই কথা সব সময়ই বলে থাকেন। এর প্রধান কারণ ফলনের সময় ব্যবহৃত বিভিন্ন রাসায়নিক ও পেস্টিসাইড। যা সব্জি এবং ফলের খোসায় শোষিত হয়ে থাকে। সাধারণ ভাবে আমরা কলের পানিতে ধুয়েই বাজার থেকে কেনা শাক-সব্জি খেয়ে থাকি। অনেক সময়ই এতে খাবার সম্পূর্ণ পেস্টিসাইডমুক্ত হয় না। জেনে নিন ফলমূল পেস্টিসাইড করার কিছু উপায়।


গরম পানি
রান্না করার আগে হালকা গরম পানিতে ভাল করে ধুয়ে নিলে টক্সিন দূর হবে। খুব গরম বা খুব ঠান্ডা পানিতে ধুলে ভাল করে পেস্টিসাইড পরিষ্কার হবে না। হালকা গরম জল ওয়াক্স, পালিশ বা অন্যান্য ক্ষতিকারক রাসায়নিক দূর করতে সাহায্য করবে।


লবন পানি
বড় বাটিতে পানি নিয়ে আধ চামচ লবন দিন। এই পানিতে ফল-সব্জি ধুয়ে নিয়ে তারপর পরিস্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।
পাতলা ভিনিগার সলিউশন
বেশির ভাগ পেস্টিসাইডই খোসায় শোষিত হয়। পেস্টিসাইডমুক্ত করার জন্য পানি দিয়ে ধোওয়ার পর বড় বাটিতে পাতলা ভিনিগারে নিয়ে কিছুক্ষণ তার মধ্যে ফল-সব্জি ডুবিয়ে রাখুন। তুলে নিয়ে পরিস্কার পানিতে ধুয়ে তারপর খান।


খোসা
পেঁয়াজ, আলু, আপেল, কমলালেবু, আদা, আম, গাজর, মুলো, বিট জাতীয় ফল-সব্জির ক্ষেত্রে খোসা ছাড়ানো খুবই সহজ। এই ধরনের খাবার ভাল করে ধুয়ে নেওয়া পর খোসা ছাড়িয়ে আবার পানিতে ধুয়ে নিন।


হোমমেড ক্লিনিং স্প্রে
এক টেবল চামচ লেবুর রস ও দুই টেবল চামচ বেকিং সোডা ভাল করে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ এক কাপ পানিতে মিশিয়ে পাতলা করে নিন। বোতলে ভরে ঠান্ডা কোনও জায়গায় রেখে দিন। ফল, সব্জির গায়ে স্প্রে করে নিন।


কাপড়
পানি দিয়ে ধোওয়ার পর গরম পানিতে পরিষ্কার কাপড় ভিজিয়ে ফল, সব্জির গা ভাল করে মুছে নিন। এতে যদি ধোওয়ার পরও কিছু লেগে থাকে তা উঠে যাবে।