আগের সর্ম্পক নিয়ে কষ্ঠ বাড়াতে চাননা সখ

Aug 03, 2017 04:30 pm
প্রিয় মুখ আনিকা কবির শখ

 

বাংলাদেশের শোবিজের প্রিয় মুখ আনিকা কবির শখ। প্রতিদিন টিভি খুললেই তার হাসিমাখা মুখটি দেখা যায়। আপন প্রতিভায় লাইম লাইটে উঠে এসেছেন। মিডিয়ার সর্বত্রই এখন তার বিচরণ। তৈরি করেছেন ক্রেজ। লিখেছেন আলমগীর কবির

ভূবন ভোলানো হাসি সত্যিকার অর্থেই মোহনীয় সৌন্দর্য। মডেল অভিনেত্রী আনিকা কবির শখ শোবিজ যাত্রার পর সেটাইর নতুন প্রমান মিলেছিল। প্রথম যখন দেশের বাইরে গিয়েছিলেন, এক বিদেশীকে বুঝাতে কষ্ট হয়েছিল তিনি বাংলাদেশী মেয়ে। পরবর্তী সময়ে তার সেই সৌন্দর্যের বিকাশ প্রতিভার সাথে কতটুকু মানানসই করে তুলতে পেরেছেন সেটা সবারই জানা। এখন মডেলিংয়ের সাথে নাটক ও চলচ্চিত্রে কাজ করছেন।


কিন্ত তার শুরুটা নিয়ে রয়েছে মজার গল্প। ছোট্ট মেয়েটির বয়স যখন মাত্র ৪ কি ৫, তখন থেকেই তাকে নাচতে দেখা যেত। একা একাই নাচতো। নাচের প্রতি মেয়ের এই আগ্রহ দেখে বাবা তাকে ভর্তি করিয়ে দেন বাড়ির পাশেই গেন্ডারিয়ার একটি নাচের স্কুলে। সেখান থেকে শিশু একাডেমীতে। খুব দ্রুত নাচের মুদ্রা আয়ত্ব করায় অল্পদিনেই প্রিয় হয়ে উঠে নৃত্যশিক্ষকদের কাছে।


নাচের সেই মেয়ের শোবিজ অভিষেকটা হয়েছিল মডেলিংয়ের মাধ্যমে। এরপর নাটক এবং চলচ্চিত্রে তার পদাচরণা শুরু। মডেল হিসেবে প্রথম বিজ্ঞাপনেই চমক তৈরি করেন শখ। চলচ্চিত্রের সেই সময়ের সুপারস্টার চিত্রনায়ক রিয়াজের সাথে তাকে অনবদ্য ভঙ্গি দেখা যায় একটি কোমল পানীয়ের বিজ্ঞাপনে।


বাংলালিংকের দেশ সিরিজের নাচে-গানে ভরপুর নতুন বিজ্ঞাপনটিতে মডেল হিসেবে শখ সুযোগ পান নাচের মেয়ে বলেই। এই বিজ্ঞাপনটি তার ক্যারিয়ারে নতুন মাত্রা যোগ করে। শখ নিজেও এটি স্বীকার করে বলেন, এটাকে আমার ক্যারিয়ারের একটি টার্নিং পয়েন্ট মনে করি। বিজ্ঞাপনটি করার পর দর্শকদের কাছ থেকে অনেক রেসপন্স পেয়েছি। এতে আমার কো-আর্টিস্ট ছিলেন নিলয় আর সারিকা। আমাদের মধ্যে আন্ডারস্ট্যান্ডিংটাও ছিল চমৎকার। সবার মধ্যে ভালো কিছু করার চেষ্টা ছিল বলেই কাজটি ভালো হয়েছে।


বাংলালিংকের সিরিজ বিজ্ঞাপন ছাড়াও শখ বিভিন্ন সময় মডেল হয়েছেন সানসিল্ক, ক্লোজআপ, প্যারাসুট, ফেয়ারনেস ফেয়ার, নকিয়া, ওয়ালটনসহ বেশ কিছু ভালো প্রোডাক্টের। সেই ধারাবাহিকতায় আকতার ম্যাট্রেসের একটি বিজ্ঞাপন চিত্রে সুপার মডেল নোবেলের বিপরীতে শখ পারফর্ম করেছেন।


শখ প্রথম টিভিনাটকের অভিনয় ২০০২ সালে শিশুশিল্পী হিসেবে ‘স্বাক্ষর’ নামের একটি নাটকে। প্রথম নাটকে কাজ করার অভিজ্ঞতা জানিয়ে শখ বলেন, শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয় করলেও আমার প্রথম নাটকের চরিত্রটিই ছিল আমাকে ঘিরে। দিদারুল আলম বাদলের ‘স্বাক্ষর’ নামের এ নাটকটিতে রাইসুল ইসলাম আসাদের মতো একজন সিনিয়র অভিনেতার সাথে কাজ করার সুযোগ হয়েছিল। এরপর আমি অভিনয় করি কায়েস চৌধুরী পরিচালিত ‘নিক্তি’ নামের একটি নাটকে। এতে আরো ছিলেন তৌকির আহমেদ, আফসানা মিমি, আমজাদ হোসেন প্রমুখ।


অনেকের ধারণা করতেন, শখ শুধু টিনএজ চরিত্রগুলোতে বেশি মানানসই। এ ধারণা ভেঙে দিতে এর বাইরেও কয়েকটি নাটকের কাজ করেছেন। অন্যরকম কাজকেই এখন প্রাধান্য দিচ্ছেন তিনি। এ ব্যাপারে শখ বলেন, প্রথমদিকে আমার বয়সের সাথে টিনএজ চরিত্রগুলো মানানসই বলেই এ টাইপের কাজকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছি। আমার যেহেতু লক্ষ্য ভালো একজন অভিনেত্রী হওয়া সে কারণে নিজেকে ভাঙার চেষ্টা করছি। যেমন ধরুন, মাহফুজ আহমেদের স্টেটমেন্ট নাটকের কথা। এ নাটকে অভিনয় করতে গিয়ে আমাকে নোয়াখালীর আঞ্চলিক ভাষার সংলাপ আওড়াতে হয়েছে। পরে আরেকটি নাটকে কুষ্টিয়ার আঞ্চলিক ভাষার ওপরও কাজ করেছি। এ ভাষাগুলো রপ্ত করতে গিয়ে আমাকে বেশ পরিশ্রম করতে হয়েছে।


শখকে অভিনয়ে কী তুলনামূলক কম দেখা যায়? জবাবে তিনি বললেন, কাজ তো করছি। অনেক নাটকই এখন প্রচারের অপেক্ষায় আছে। সত্যি বলতে কী, আমি শুরু থেকেই বেছে বেছে কাজ করতে পছন্দ করি। ভালো গল্প আর মনমতো চরিত্র হলেই আমি অভিনয়ে আগ্রহী হই। মানসম্মত না হলে আমি নাটকে আগ্রহী নই। সেই কারণেই অনেক নাটকের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেই।


বড়পর্দায় শখের অভিষেক হয়েছে ২০১১ সালে। চলচ্চিত্রটির নাম ‘বলো না তুমি আমার’। এফআই মানিকের পরিচালনায় এতে শখ অভিনয় করেছেন শীর্ষনায়ক শাকিব খানের বিপরীতে। ছবিটি ব্যবসা সফল হলেও শখের চলচ্চিত্র ক্যারিয়ার এরমধ্য দিয়ে খুব একটা বিকষিত হয়নি। তার দ্বিতীয় ছবির নাম ‘অল্প অল্প প্রেমের গল্প’। সানিয়াৎ হোসেন পরিচালিত এই ছবিতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন নিলয় আলমগীর। মুক্তির পর ছবিটির জায়গা হয়েছিল ফ্লপ তালিকায়।

এর পর থেকে তাকে আর কোন নতুন চলচ্চিত্রে দেখা যায়নি। তবে চলচ্চিত্রে কাজ করার ব্যাপারে তিনি দৃঢ় প্রতিজ্ঞ তিনি। শখ বললেন, ‘পারফর্মিং মিডিয়ার সবচেয়ে বড় প্লাটফর্ম হলো চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রে অবশ্যই কাজ করব। বড় পর্দায় কাজ করার আলাদা একটা মজা রয়েছে। চলচ্চিত্রে নিয়মিত কাজ করার আগে আমি নিজেকে আরো গড়ে তুলতে চাই। ভবিষ্যতে ভালো ভালো ছবিতে কাজ করতে চাই। তবে বছরে একটি বা দুটোর বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করার ইচ্ছে আমার নেই।


মডেলিং, নাটক নাকি চলচ্চিত্র এই তিনটির মধ্যে কোনটিতে অভিনয় স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন ? উত্তরে শখ বলেন, আসলে তিনটি মাধ্যমেই কাজ করার মজা তিন রকম। সেটি সহজে বোঝানো সম্ভব নয়। যখন যেটা করি পূর্ণ মনোযোগের সাথে নিষ্ঠার সাথে করে যেতে চাই। কাজের ক্ষেত্রে আমি সবসময় সিরিয়াস।

কিন্ত এই সিরিয়ানেসটা ধরে রাখাই এখন শখের জন্য সবচেয়ে কঠিন ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে। কারণ ব্যক্তিগত জীবনে বড় ধরনের ছন্দপতন হয়ে গেল সম্প্রতি।

২০১৬ সালের ৭ জানুয়ারি দুই পরিবারের সম্মতিতে মডেল নিলয়ের সাথে বিয়ে হয়েছিল শখের। কদিন আগে দুজনেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিচ্ছেদের খবর প্রকাশ করেন। বিষয়টি নিয়ে শখের কাছে প্রশ্ন রাখা হলে, বিনয়ের সাথে প্রসঙ্গটি বাদ দেয়ার অনুরোধ করেন। শখ বলেন, ব্যক্তিগত জীবনে যা ঘটে গেল তা নিয়ে কথা বলে কষ্ট বাড়াতে চাই না।

মানুষ আমাকে ভালোবাসে কাজের কারনে সেই কাজ নিয়েই থাকতে চাই।’ তিনি বলেন, ‘ঈদ উপলক্ষ্যে বেশ কয়েকটি নাটকে প্রস্তাব পেয়েছি। এখনো কাজ শুরু করিনি। স্ক্রিপ্ট পরে আগামি কয়েক দিনের মধ্যেই কাজ শুরু করে দিব। আমি সবার ভালোবাসা নিয়ে শুধু কাজের মধ্যে বেঁচে থাকতে চাই। এজন্য শোবিজ অঙ্গনের সবার সহযোগিতা পাবো বলে আশা রাখছি।’

একনজরে শখ
পুরো নাম : আনিকা কবির শখ
আদরের নাম : পুটলি
জন্ম তারিখ : ২৫ অক্টোবর
জন্মস্থান : ন্যাশনাল হাসপাতাল, ঢাকা
বাবার নাম : শামিম কবির
মায়ের নাম : শাহিদা কবির
গ্রামের বাড়ি : মুন্সিগঞ্জ
প্রথম স্কুল : গেন্ডারিয়া কিশলয় কচিকাঁচার মেলা
প্রথম নাটক : স্বাক্ষর
প্রথম বিজ্ঞাপন : সানসিল্ক (স্টিল অ্যাড)
প্রথম সিনেমা : বলো না তুমি আমার
প্রিয় মডেল : সাদিয়া ইসলাম মৌ, নোবেল
প্রিয অভিনেতা : হুমায়ুন ফরীদি, আফজাল হোসেন
প্রিয় কবি : কাজী নজরুল ইসলাম
অবসর কাটে : গান শুনে, বই পড়ে।