সাকিবের সাফল্যে শিশিরের প্রেরনা

Aug 21, 2017 02:31 pm
স্ত্রী ও সন্তানসহ সাকিব


অন্যদিগন্ত ডেস্ক :


ক্রিকেট মাঠে বহু কীর্তি গড়ে আজ তিনি বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। ২০০৬ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক সাকিব আল হাসানের।  নিজের অর্জনের পেছনে স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশিরের অবদানের কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করলেন সাকিব।
বাংলাদেশের রোমাঞ্চকর জয়ের অন্যতম নায়ক সাকিব আল হাসান। তার স্পিনে ধস নামে অসি শিবিরে। ১০ উইকেট শিকার করে বাংলাদেশের জয়ের পথ সুগম করেন। হন ম্যান অব দ্য ম্যাচ। আর তখনি জানান, ম্যাচ জয়ের জন্য সাকিবকে উদ্বুদ্ধ করেছেন স্ত্রী শিশির।
ম্যাচ শেষে সাকিব বলেন. ‘কাল রাতে আমি আমার স্ত্রী শিশিরকে বলছিলাম ম্যাচটা মনে হয় হেরেই যাচ্ছি। তখন শিশির বলেন, তুমিই শুধু পারো বাংলাদেশকে জেতাতে।

এর আগে তাকে দেয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্টানে স্ত্রীর প্রশংসা করেছেন তিনি।

 

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের যুগপূর্তিতে সাকিবকে সংবর্ধনা দিয়েছে ‘ষোলো কোটি মানুষের প্রাণ, সাকিব আল হাসান’ নামে একটি সংগঠন।  অনুষ্ঠানটি হয় মিরপুর এক নম্বরে সাকিবেরই রেস্টুরেন্টে। সেখানে স্ত্রীর অবদান প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তার মন্তব্য, ‘আমার ক্যারিয়ার এত দূর আসার পেছনে স্ত্রীর অনেক অবদান আছে। আর মেয়ের জন্মের পর আমাদের পুরো জীবনটাই বদলে গেছে।’


স্ত্রীর পাশাপাশি বন্ধু-আত্মীয়-সাংবাদিক এবং ভক্তদের কথাও বলেছেন সাকিব। ভক্তদের ধন্যবাদ জানিয়ে তার মন্তব্য, ‘ভক্তরা শুধু আমাকে নয়, পুরো বাংলাদেশ দলকে অনুপ্রাণিত করে। অনেক সমস্যার মধ্যেও ভক্তরা যেভাবে সমর্থন দেয়, তা অকল্পনীয়। খারাপ সময়ে সমর্থন অনেক কাজে আসে, আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দেয়।

ক্রিকেট বোর্ড সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা আর আপনারাও (সাংবাদিকরা) অনুপ্রাণিত করেন আমাকে।’
বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে সাকিবের আক্ষেপও আছে কিছুটা, ‘আমরা যে টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠেছিলাম, সেটা জিততে পারলে ভালো হতো। তবে সুযোগ এখনও শেষ হয়ে যায়নি। আমাদের উন্নতির ধারা ঊর্ধ্বমুখী। আশা করি, ভবিষ্যতে ট্রফি জিততে পারবো।’


ক্যারিয়ারের ১১ বছর পেরিয়ে গেলেও আরও দীর্ঘ দিন দেশের হয়ে খেলতে চান তিনি, ‘যতদিন পারফর্ম করতে পারবো, ততদিনই খেলবো। জানি না আর কতদিন খেলতে পারবো। তবে আশা করি, আরও ৮-১০ বছর খেলা চালিয়ে যেতে পারবো।’


অনুষ্ঠানে ‘আলাদীনের চেরাগ হাতে পেলে কী করবেন?’ এমন প্রশ্ন রাখা হয় সাকিবের সামনে। কিছুক্ষণ ভেবে নিয়ে তারকা অলরাউন্ডারের সপ্রতিভ উত্তর, ‘এটা সত্যি চিন্তা করার বিষয়। টাকা যে চাইবো, এটা নিশ্চিত। কারণ টাকা থাকলে সব কিছু করা সম্ভব। দেশকে কীভাবে সুন্দর করে সাজানো যায়, ক্রিকেটে আরও উন্নতি করা যায় এসবই চাইবো।’


আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হওয়ার পর পেরিয়ে গেছে ১১ বছর। উথান-পতন কম ঘটেনি বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের জীবনে। অনেক বাধা পেরিয়েই সাকিব আজ বিশ্বসেরা। আর নিজের এই অর্জনের পেছনে অনেকটাই রয়েছে স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশিরের অবদান।


বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে অনেক কিছু পাওয়ার পাশপাশি না পাওয়ার আক্ষেপও আছে কিছুটা। বলেন, ‘আমরা যে টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠেছিলাম, সেটা জিততে পারলে ভালো হতো। তবে সুযোগ এখনও শেষ হয়ে যায়নি। আমাদের উন্নতির ধারা ঊর্ধ্বমুখী। আশা করি, ভবিষ্যতে ট্রফি জিততে পারবো।’